Spread the love

Featured Image: Wikipedia Commons.

Image: Perry-Castañeda Library Map Collection, The University of Texas at Austin.

সাল

১৪৯৮ তানজানিয়ার উপকূল পরিদর্শন করলেন পর্তুগিজ নাবিক ভাস্কো দা গামা।

১৫০৬ পূর্ব আফ্রিকার উপকূলের অধিকাংশ অঞ্চলের ওপর পর্তুগিজদের নিয়ন্ত্রণ স্থাপিত হল।

১৬৯৯ ওমানি আরবরা জাঞ্জিবার থেকে পর্তুগিজদের তাড়িয়ে দিল।

১৮৮৪ তানজানিয়ায় জমি কিনতে শুরু করল জার্মান উপনিবেশায়ন সমিতি।

১৯০৫-০৬ আদিবাসী মাজি মাজি বিদ্রোহ দমন করল জার্মান সেনাদল।

১৯১৪-১৮ ‘প্রথম বিশ্বযুদ্ধ’।

১৯১৬ জার্মান পূর্ব আফ্রিকার অধিকাংশ অঞ্চলই ব্রিটিশ, বেলজীয়, ও দক্ষিণ আফ্রিকীয় সেনাদলের দখলদারিত্বে আছে।

১৯১৯ লীগ অফ নেশনসের ইচ্ছায় তানজানিকা* একটি ব্রিটিশ ম্যান্ডেটে পরিণত হল।

* আজকের তানজানিয়ার মূলভূমি।

১৯২৯ প্রতিষ্ঠিত হল তানজানিকা আফ্রিকান অ্যাসোসিয়েশন।

১৯৪৬ তানজানিকার ওপর থাকা ব্রিটিশ ম্যান্ডেটকে জাতিসংঘ একটা ট্রাস্টিশিপে পরিণত করল।

১৯৫৪ জুলিয়াস নায়ারে আর অস্কার কাম্বোনা তানজানিকা আফ্রিকান অ্যাসোসিয়েশনকে তানজানিকা আফ্রিকান ন্যাশনাল ইউনিয়নে রূপান্তরিত করলেন।

১৯৬১ তানজানিকার স্বাধীনতা অর্জন, প্রধানমন্ত্রী হলেন জুলিয়াস নায়ারে।

১৯৬২ নায়ারে প্রেসিডেন্ট, একটি প্রজাতন্ত্রে পরিণত হল তানজানিকা।

১৯৬৩ জাঞ্জিবারের স্বাধীনতা অর্জন।

১৯৬৪ আফ্রো-শিরাজি দলের নেতৃত্বে এক বামপন্থী বিপ্লবে উৎখাত হয়ে গেল জাঞ্জিবারের সুলতানশাহি। তানজানিকা ও জাঞ্জিবারকে একীভূত করে গঠন করা হল তানজানিয়া। নায়ারে প্রেসিডেন্ট হলেন, ভাইস-প্রেসিডেন্ট হলেন আফ্রো-শিরাজি নেতা আবেইদ আমানি কারুমে।

১৯৬৭ ‘আরুশা ঘোষণা’: সমাজতান্ত্রিক অর্থনৈতিক স্বনির্ভরতার নীতি ঘোষণা করলেন নায়ারে।

১৯৭২-৭৩ তানজানিয়ার সাথে সীমান্ত সংঘাতে জড়িয়ে পড়ল উগান্ডা।

১৯৭৭ তানজানিকা আফ্রিকান ন্যাশনাল ইউনিয়ন আর আফ্রো-শিরাজি পার্টি একীভূত হয়ে বিপ্লবের দল গঠন করল, যাকে একমাত্র বৈধ দল বলে ঘোষণা করা হল।

১৯৭৮ কাগেরা অঞ্চল নিজ সীমানাভুক্ত করার উদ্দেশ্যে তানজানিয়ায় হামলা চালাল উগান্ডা।

১৯৭৯ উগান্ডায় হামলা চালাল তানজানিয়া। গঠন করল উগান্ডা জাতীয় মুক্তি ফ্রন্ট। তানজানিয়ার মদতপুষ্ট উগান্ডা জাতীয় মুক্তি ফ্রন্ট সারা দেশের আমিনবিরোধী শক্তিদের ঐক্যবদ্ধ করল। এপ্রিল ১১: জাতীয় মুক্তি ফ্রন্টের বাহিনীর হাতে কাম্পালার পতন ঘটলে ইদি আমিন দাদা দেশ ছেড়ে সৌদি আরবে পালিয়ে গেলেন।

১৯৮৫ অবসরে গেলেন নায়ারে।

১৯৯২ সংবিধান সংশোধন করলে প্রবর্তিত হল বহুদলীয় ব্যবস্থা।

১৯৯৫ তানজানিয়ার প্রথম বহুদলীয় নির্বাচনে জিতে দেশটির প্রেসিডেন্ট হলেন বেনজামিন এমকাপা।

১৯৯৮ তানজানিয়া ও কেনিয়ায় মার্কিন দূতাবাসগুলায় গুচ্ছ বোমা হামলা চালাল আল কায়েদা।

২০০০ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৭২ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচিত হলেন জনাব এমকাপা।

২০১৫ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন বিপ্লবের দলের জন মাগুফুলি।

২০১৬ এপ্রিল: পূর্ব আফ্রিকার প্রথম গুরুত্বপূর্ণ তেল পাইপলাইনটি নির্মাণ করতে রাজি হল তানজানিয়া ও উগান্ডা।

২০২০ অক্টোবর: প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হলেন মাগুফুলি, বিরোধীরা ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ আনল।

২০২১ মার্চ ১৯: তানজানিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট সামিয়া সুহুলু হাসান।

তথ্যসূত্র

BBC. “Tanzania profile – Timeline.” BBC, November 15, 2018.
https://www.bbc.com/news/world-africa-14095868

নোট: ইরফানুর রহমান রাফিনের নন-ফিকশন সময়রেখা ঢাকার দিব্যপ্রকাশ কর্তৃক ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশিত হয়। এই ব্লগটি সেই বই সংশ্লিষ্ট গবেষণা প্রকল্প। ঢাকা, চট্টগ্রাম, ও সিলেটের বিভিন্ন বইয়ের দোকানে পাওয়া যাবে সময়রেখা, এবং অনলাইনে অর্ডার দিয়েও সংগ্রহ করা যাবে।

অনলাইন অর্ডার লিংকসমূহ

দিব্যপ্রকাশ । বাতিঘর । বইবাজার । বইয়ের দুনিয়া । বইফেরী । বুক হাউজ । ওয়াফিলাইফ । রকমারি

By irrafinofficial

ইরফানুর রহমান রাফিনের জন্ম ঢাকায়, ১৯৯২ সালে। বর্তমানে একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমে লিখে অন্নসংস্থান করেন। নিজেকে স্মৃতি সংরক্ষণকারীদের পরম্পরার একজন হিসাবে দেখেন। যোগাযোগ: irrafin2022@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Creative Commons License
Except where otherwise noted, the content on this site is licensed under a Creative Commons Attribution-ShareAlike 4.0 International License.